গণিত করব জয়

গণিত করব জয়

187.00৳ 

-15%

‘গণিত করব জয়’ বইয়ের সারাংশঃ গণিত করব জয় বইটি লেখেছেন তামিম শাহরিয়ার সুবিন এবং তাহমিদ রাফি। তামিম শাহরিয়ার সুবিন এর জন্ম ১৯৮২ সালের ৭ নভেম্বর ময়মনসিংহে। বর্তমানে পরিবার নিয়ে তিনি সিঙ্গাপুরে বসবাস করছেন। ২০০৭ ও ২০০৮ সালে। তিনি এসিএম আইসিপিসি ঢাকা রিজিওনাল-এর বিচারক ছিলেন। বাংলাদেশে থাকাকালীন সময়ে প্রতিষ্ঠা করেছেন মুক্ত সফটওয়্যার লিমিটেড ও দ্বিমিক কম্পিউটিং। এ ছাড়া তিনি বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াডে একজন একাডেমিক কাউন্সিলর। বর্তমানে সিঙ্গাপুরে গ্র্যাব নামক একটি আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানে। ইঞ্জিনিয়ারিং ম্যানেজার হিসেবে কাজ করছেন। তাহমিদ রাফি-এর জন্ম ১৯৮৮ সালের ১৮ অক্টোবর ঢাকা জেলায়। ২০০৩, ২০০৪ ও ২০০৫ সালে অনুষ্ঠিত আঞ্চলিক গণিত অলিম্পিয়াড প্রতিযােগিতায়। চ্যাম্পিয়ন হন তিনি। ২০০৫ সালে মেক্সিকোতে অনুষ্ঠিত ৪৬তম আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডে অংশগ্রহণকারী প্রথম বাংলাদেশ দলের সদস্য ছিলেন। গণিত শব্দটা এসেছে গণনা থেকে এবং গণনা করার শাস্ত্রই হচ্ছে গনিত। আর এর জন্য যে টুল ব্যবহার করি তা হচ্ছে সংখ্যা। এই সংখ্যা যেমন । ০,১,২,৩,৪,৫…৯ পর্যন্ত সংখ্যা গুলােকে অঙ্ক বা ইংরেজিতে ডিজিট বলে। এই সংখ্যা এলাে, হাজার হাজার বছর আগে যখন মানুষ পশুপালন শুরু করল। তখন প্রয়ােজন দেখা দিল সংখ্যার। তখন কিন্তু ০,১,২,৩,… এ রকম লেখা হত না তখন পাথরের গায়ে বা মাটিতে দাগ কেটে এই গণনা করা হত। ০,১,২,৩… এগুলাে কিন্তু একদিনে তৈরি হয় নি বিভিন্ন সময়-এর প্রয়ােজনে এগুলাে তৈরি হয়েছে এবং ০ (শূন্য) এর প্রথম তৈরি এবং ব্যবহার হয়। ভারতবর্ষে। পৃথিবীর সবচেয়ে ছােট সংখ্যা আর বড় সংখ্যা বলে কিছু বলার উপায় নেই। এবং সংখ্যারেখা হচ্ছে সেই রেখা, যার ওপর পৃতিবীর সমস্ত সংখ্যা। আছে। এবং এই রেখার একদম মাঝখানে সংখ্যাটি হচ্ছে ০ ০ (শূন্য কিন্তু একটি জোড় সংখ্যা এবং এর ২ ঘর করে সামনে বা পিছে যেতে থাকলে যত সংখ্যা পাওয়া যাবে তারা সবাই কিন্তু জোড় সংখ্যা আর বাকি সব বেজোড় সংখ্যা। এই ভাবে গণিতিক অপারেশন, যােগ, বিয়ােগ, গুন, ভাগ, বীজগনিত, ফাংশন এইগুলাে খুব সুন্দর করে এই বইতে পর পর দেওয়া আছে।

Availability: 85 in stock

187.00৳ 

Availability: 85 in stock

Add to cart
Buy Now

Product Description

‘গণিত করব জয়’ বইয়ের সারাংশঃ গণিত করব জয় বইটি লেখেছেন তামিম শাহরিয়ার সুবিন এবং তাহমিদ রাফি। তামিম শাহরিয়ার সুবিন এর জন্ম ১৯৮২ সালের ৭ নভেম্বর ময়মনসিংহে। বর্তমানে পরিবার নিয়ে তিনি সিঙ্গাপুরে বসবাস করছেন। ২০০৭ ও ২০০৮ সালে। তিনি এসিএম আইসিপিসি ঢাকা রিজিওনাল-এর বিচারক ছিলেন। বাংলাদেশে থাকাকালীন সময়ে প্রতিষ্ঠা করেছেন মুক্ত সফটওয়্যার লিমিটেড ও দ্বিমিক কম্পিউটিং। এ ছাড়া তিনি বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াডে একজন একাডেমিক কাউন্সিলর। বর্তমানে সিঙ্গাপুরে গ্র্যাব নামক একটি আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানে। ইঞ্জিনিয়ারিং ম্যানেজার হিসেবে কাজ করছেন। তাহমিদ রাফি-এর জন্ম ১৯৮৮ সালের ১৮ অক্টোবর ঢাকা জেলায়। ২০০৩, ২০০৪ ও ২০০৫ সালে অনুষ্ঠিত আঞ্চলিক গণিত অলিম্পিয়াড প্রতিযােগিতায়। চ্যাম্পিয়ন হন তিনি। ২০০৫ সালে মেক্সিকোতে অনুষ্ঠিত ৪৬তম আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডে অংশগ্রহণকারী প্রথম বাংলাদেশ দলের সদস্য ছিলেন। গণিত শব্দটা এসেছে গণনা থেকে এবং গণনা করার শাস্ত্রই হচ্ছে গনিত। আর এর জন্য যে টুল ব্যবহার করি তা হচ্ছে সংখ্যা। এই সংখ্যা যেমন । ০,১,২,৩,৪,৫…৯ পর্যন্ত সংখ্যা গুলােকে অঙ্ক বা ইংরেজিতে ডিজিট বলে। এই সংখ্যা এলাে, হাজার হাজার বছর আগে যখন মানুষ পশুপালন শুরু করল। তখন প্রয়ােজন দেখা দিল সংখ্যার। তখন কিন্তু ০,১,২,৩,… এ রকম লেখা হত না তখন পাথরের গায়ে বা মাটিতে দাগ কেটে এই গণনা করা হত। ০,১,২,৩… এগুলাে কিন্তু একদিনে তৈরি হয় নি বিভিন্ন সময়-এর প্রয়ােজনে এগুলাে তৈরি হয়েছে এবং ০ (শূন্য) এর প্রথম তৈরি এবং ব্যবহার হয়। ভারতবর্ষে। পৃথিবীর সবচেয়ে ছােট সংখ্যা আর বড় সংখ্যা বলে কিছু বলার উপায় নেই। এবং সংখ্যারেখা হচ্ছে সেই রেখা, যার ওপর পৃতিবীর সমস্ত সংখ্যা। আছে। এবং এই রেখার একদম মাঝখানে সংখ্যাটি হচ্ছে ০ ০ (শূন্য কিন্তু একটি জোড় সংখ্যা এবং এর ২ ঘর করে সামনে বা পিছে যেতে থাকলে যত সংখ্যা পাওয়া যাবে তারা সবাই কিন্তু জোড় সংখ্যা আর বাকি সব বেজোড় সংখ্যা। এই ভাবে গণিতিক অপারেশন, যােগ, বিয়ােগ, গুন, ভাগ, বীজগনিত, ফাংশন এইগুলাে খুব সুন্দর করে এই বইতে পর পর দেওয়া আছে।

লিখেছেন

,

প্রকাশনী

দ্বিমিক প্রকাশনী

পৃষ্ঠা

144

প্রকাশকাল

1st publisher 2018

আইএসবিএন

9789849216483

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “গণিত করব জয়”

Your email address will not be published. Required fields are marked *